• আজ ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

পটুয়াখালীতে অপি হত্যার প্রধান আসামী গ্রেফতার

| নিজস্ব সংবাদদাতা ৫:৪৭ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২২ Breaking, সারাবাংলা
Spread the love

তালুকদার সোহাগ, পটুয়াখালী-পটুয়াখালী মির্জাগঞ্জের মোঃ আরিফুর রহমান ওরফে অপি(২২) হত্যার প্রধান আসামী মোঃ সোলায়মান ওরফে লিমন (২২)কে গ্রেফতার করেছে  র‌্যাব-৮

আজ রোববার দুপুরে পটুয়াখালী র‌্যাব কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা জানায়, পটুয়াখালী ক্যাম্পের কোম্পানী অধিনায়ক লেঃ কমান্ডার, মোঃ শহিদুল ইসলাম, (এস), পিসিজিএমএস, বিএন।

তিনি বলেন, র‌্যাব প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই ডাকাত, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, জঙ্গি দমন, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার, মাদক ব্যবসায়ী, প্রতারকচক্র এবং চাঞ্চল্য কর হত্যা মামলার আসামীসহ বিভিন্ন অপরাধীদের গ্রেপ্তারে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। এছাড়াও গোয়েন্দা নজরদারী ও আভিযানিক কার্যক্রমের ধারাবাহিকতায় এ ধরণের অপরাধ নিয়ন্ত্রণে র‌্যাব ইতিমধ্যেই বিশেষ সফলতা অর্জনে সক্ষম হয়েছে।

ঘটনার বিবরণ দিয়ে কোম্পানী অধিনায়ক জানান, গত বছরের ২৮ ডিসেম্বর দুপুর ১টার দিকে মির্জাগঞ্জের মধ্য রানীপুর গ্রামের মোঃ আলতাফ হোসেন এর ছেলে মোঃ আরিফুর রহমান ওরফে অপি চরখালী বাজারে যাবে বলিয়া ঘর হইতে বাহির হয়। পরবর্তীতে সে যথাসময়ে বাড়ীতে ফিরে না আসায় ওই বছরের ৩০ ডিসেম্বর মির্জাগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। এর পরে চলতি বছরের ২ জানুয়ারি সদর থানাধীন ছোট বিঘাই চর আকবর আজিজ ফরাজীর বাড়ীর পশ্চিমে পায়রা নদীতে সকাল পৌনে ৮টার দিকে ভাসমান অবস্থায় একটি অজ্ঞাতনামা লাশ পাওয়া যায়। লাশের সুরতহাল করাকালীন সময় লাশের পরিহিত প্যান্টের পকেটে থাকা মোবাইলের সেভ করা নম্বর দিয়ে মোঃ আরিফুর রহমান ওরফে অপির পিতাকে কল করে এবং তখন সে উক্ত স্থানে গিয়ে ছেলের লাশ সনাক্ত করে এবং অজ্ঞাতনামা করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার ফলে বিষয়টি চাঞ্চল্যকর হয়। ফলে র‌্যাব-৮, বরিশাল এর অতিরিক্ত ডিআইজি মোঃ জামিল হাসান, বিপিএম-সেবা, পিপিএম এর দিক নির্দেশনা এবং র‌্যাব হেডকোয়ার্টার কর্তৃক আধুনিক তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-৯, সিলেট, সিপিসি-১ এর সহযোগীতায় হবিগঞ্জ জেলার মাধপুর থানার শাজাহানপুর ইউনিয়নের গজপুর গ্রাম হতে গতকাল শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে সন্ধেহভাজন প্রধান আসামী মোঃ সোলায়মান ওরফে লিমনকে গ্রেফতার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায়, অপির সাথে অনেক দিনের বন্ধুত্ব ছিল তার এছাড়াও তারা বিগত ৩ বছর থেকেই মাদক সেবন করত।ঘটনার দিন দুপুর আড়াইটারদিকে অপি, লিমনদের বাসায় যায়। পরে আসরের সময় তারা সাব্বির(২০)সহ ৩জন মিলে বেড়িবাঁধের দিকে যায় এবং বেড়িবাঁধে বসে ছবি তুলে। এরপর অপির কাছে থাকা গামের ডিব্বা বের দুজনে গাম দিয়ে নেশা করে। পরে সন্ধা সময় নদীর একদম কাছা কাছি বসে দ্বিতীয় ধাপে নেশা শুরু করে এবং একপর্যায়ে নেশা করতে করতে তারা নদীর ধারে দাঁড়িয়ে যায়। দাঁড়ানোর একপর্যায়ে ফাজলামি করে লিমন, অপিকে ধাক্কা মারলে অপি নদীতে পড়ে যায়। এ সময় লিমন নেশাগ্রস্ত থাকায় পানি থেকে তোলার কোন চেষ্টা করে নাই। নদীর পাড় খারা থাকার কারণে মোঃ সাব্বির একা অপিকে তোলার জন্য চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়। পানির স্রোত টেনে নিয়ে যায়। বিষয়টি কাউকে না জানিয়ে তারা গোপন রাখে।
মো. সোলায়মান ওরফে লিমন উপজেলার চরখালী গ্রামের মোঃ সালাম মুসুল্লীর ছেলে বলে জানায়  এ র‌্যাব কর্মকর্তা।

 

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন সময়ের সংবাদে । আজই পাঠিয়ে দিন মেইলে -